Page Nav

HIDE

Grid

GRID_STYLE

Classic Header

{fbt_classic_header}

সদ্য পাওয়া

latest

সোনারগাঁয়ে ভেজাল মিষ্টান্ন ভান্ডারের ছড়াছড়ি

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তার মিষ্টির দোকানগুলোতে চলছে রমরমা প্রতারনা। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সহজ সরল ক্রেতারা। এনিয়...

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া চৌরাস্তার মিষ্টির দোকানগুলোতে চলছে রমরমা প্রতারনা। চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সহজ সরল ক্রেতারা। এনিয়ে ক্রেতাদের রয়েছে বিস্তর অভিযোগ। মোগরাপাড়া চৌরাস্তার ওলি গলিতে গড়ে ওঠেছে বিভিন্ন নামে মিষ্টির দোকান ও ভান্ডার। এসব  দোকানে ও ভান্ডারে পচাঁবাসি দ্রব্যের মিষ্টি তৈরী করা হয়। বাজারের সস্থা ও বস্থাপচাঁ গাজর দিয়ে তৈরী করা হয় ছানার মিষ্টি। এতে দেওয়া হয় পুরনো ও মেয়াদোর্ত্তীণ গুড়ো ুধ। চিনির সাথে মেশানো হয় ক্ষতিকর  সেগারেন। এভাবে তৈরী করা হয় ছানার মিষ্টি ছাড়াও দই, আইসক্রিম, কেকসহ নানা ধরণের মিষ্টিজাত দ্রব্য। এসব মিষ্টান্নভান্ডারের কারখানাগুলোতে গেলে দেখা যায় মেয়াদউর্ত্তীন গুড়ো দুধের বস্তা ও পচাঁ গাজরের বিপুল সমাহার। মিষ্টিদ্রব্য বাজারজাত করার মধ্যে দিয়ে স্বাস্থ্যের ক্ষতিসাধনসহ প্রতারনা করা হয় বিক্রয়ের ক্ষেত্রেও। ওজনে কম দেয়ার জন্য কাগজের ভারি প্যাকেট ও কার্টুন তৈরী করে প্যাকেটসহ ওজনে তোলা হয়। এতে ওজনে কম দেয়া হয় ক্রেতাদের। কাগুজে প্যাকেট ও কার্টুনের মূল্য নেয়া হয় মিষ্টির দামে। কোন কোন মিষ্টান্নভান্ডারে বগুড়ার দই, কুমিল্লার রস মালাই, নাটোরের ঘি নামে প্রতারনা করে বিক্রি করা হয় স্থানীয়ভাবে  ভেজালদ্রব্য দিয়ে তৈরী এসকল সামগ্রী। ঘি তৈরী করা হয় কলা, পেপেঁ গরুর চর্বীসহ নানা দ্রব্য দিয়ে। বিএসটিআই এর কতিপয় অসাধূ কর্মকর্তাদের সাথে টু পাইস সর্ম্পকের বিনিময়ে এসব মিষ্টান্নভান্ডার চালিয়ে যাচ্ছে জমজমাট প্রতারনা ব্যবসা। সোনারগাঁয়ে যেসব মিষ্টান্ডভান্ডার ভেজাল দ্রব্যদি তৈরী করা হয় তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকার আদি মিষ্টি ভুবন, নিউ বনফুল সুইটস, ভিআইপি মিষ্টি ঘর, সোনারগাঁ মিষ্টান্ন ভান্ডার, মধুবন। এসব ভান্ডারেই ভেজালদ্রব্যের মিষ্টি তৈরী ও বাজারজাত করা হয়ে থাকে।  সোনারগাঁয়ে মিষ্টির বাজার গরম থাকায় ব্যাঙ্গের ছাতার মত গড়ে ওঠা মিষ্টান্ন ভান্ডার দিয়ে হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে লাখ লাখ টাকা। বিনিময়ে করা হচ্ছে স্বাস্থ্যের চরম ক্ষতি। অতীতে কিছু কিছু মিষ্টান্ন ভান্ডারের কারখানায় বিএসটিআই অভিযান চালালেও কয়েকবছর ধরে অজ্ঞাত কারনে কোন অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছেনা। ফলে নির্বিঘেœ চলছে ক্ষতিকর মিষ্টিদ্রব্যের প্রতারণামূলক ব্যবসা।

সোনারগাঁ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) রুবায়েত হায়াত শিপলু জানান, ভেজাল মিষ্টির দোকানগুলোর বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। শীঘ্রই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হবে।

No comments