Page Nav

HIDE

Grid

GRID_STYLE

Classic Header

{fbt_classic_header}

সদ্য পাওয়া

latest

কাশ্মির আন্দোলনে নতুন মাত্রা

কাশ্মিরিরা এবার যে আন্দোলন শুরু করেছে, ভয়াবহ বিপদে পড়ে গেছে ভারতীয় বাহিনী। ভারত বড় ধরনের শক্তিই প্রয়োগ করেছে, কিন্তু কাশ্মিরিদের দমন করতে পা...

কাশ্মিরিরা এবার যে আন্দোলন শুরু করেছে, ভয়াবহ বিপদে পড়ে গেছে ভারতীয় বাহিনী। ভারত বড় ধরনের শক্তিই প্রয়োগ করেছে, কিন্তু কাশ্মিরিদের দমন করতে পারেনি। পারবে, এমন কোনো আলামতও দেখা যাচ্ছে না। কারণ এমন আন্দোলন আগে কখনো হয়নি কাশ্মিরে। সাধারণ মানুষ যেভাবে রাস্তায় নেমে আসছে, তাদের পাথর নিক্ষেপে এমনই বিপর্যয়ে পড়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী যে, সমাধানের কোনো পথই খুঁজে পাচ্ছে না।

এমনকি সেনাপ্রধান জেনারেল বিপিণ রাওয়াত তো বলতে বাধ্য হয়েছেন, বিক্ষোভকারীরা যদি গুলি ছুড়ত, তবে তাদের কাজ অনেক সহজ হতো। তার এই বক্তব্যে মনে হচ্ছে, ভারত এখন চাচ্ছে, কাশ্মিরিদের স্বাধীনতা আন্দোলনকে চরমপন্থার দিকে ঠেলে দিয়ে তা দমন করার সহজ পথে এগিয়ে যেতে।
কাশ্মিরিরা এখন পর্যন্ত ওই পথে পা বাড়ায়নি। তবে কিছু কিছু ইঙ্গিতে মনে হচ্ছে, বড় ধরনের কোনো পরিবর্তন হতে যাচ্ছে কাশ্মিরি আন্দোলনে।

তবে ভারতের অনেক রাজনীতিবিদ এবং বিশ্লেষকেরা মনে করছেন, কাশ্মির হাতছাড়া হয়ে গেছে ভারতের। কাশ্মির হয়তো এখনো সামরিক শক্তি দিয়ে ভারত ধরে রেখেছে, কিন্তু নৈতিকভাবে কাশ্মির ভারতের কাছ থেকে আলাদা হয়ে গেছে। সেই বিভাগ-পূর্ব সময়কালেই হোক, ১৯৪৮ সালেই হোক কিংবা আরো পরবর্তীকালের নানা আন্দোলনে কাশ্মিরিদের একটি অংশ ভারত সরকারের সাথে সহযোগিতা করেছিল। এর জোরেই কাশ্মির ছিল ভারতের অংশ। কিন্তু ভারতীয় নেতাদের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ, কাশ্মিরিদের ওপর চেপে বসার কারণে অবস্থার পরিবর্তন ঘটেছে। ভারতের নাগপাশ থেকে সরে যাওয়ার ব্যাপারে কাশ্মিরিরা এখন একমত। নরেন্দ্র মোদির আমলে আরো পাশবিক শক্তি প্রয়োগ করতে গিয়ে কাশ্মির থেকে ভারত আরো বেশি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।